অনলাইনেই মিলবে কসাই! প্রতিবেদক, প্রেসবাংলা২৪ডটকম: অনলাইনে কোরবানির পশুর সাথে এখন যুক্ত হয়েছে মাংস কাটা, গরু জবাই ও হোমডেলিভারি সেবা। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও ই-ক্যাবের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত ডিজিটাল হাটে (digitalhaat) পাওয়া যাচ্ছে এই সেবা। ই-কমার্স উদ্যোক্তা ছাড়াও প্রত্যন্ত এলাকার কৃষক ও খামারির যত্নে পালিত গরু, ছাগল ও ভেড়া ছাড়াও যুক্ত হয়েছে কসাই সেবা।

অনলাইনেই মিলবে কসাই!

0
20
fb-share-icon20

 

প্রতিবেদক, প্রেসবাংলা২৪ডটকম: অনলাইনে কোরবানির পশুর সাথে এখন যুক্ত হয়েছে মাংস কাটা, গরু জবাই ও হোমডেলিভারি সেবা। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও ই-ক্যাবের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত ডিজিটাল হাটে (digitalhaat) পাওয়া যাচ্ছে এই সেবা। ই-কমার্স উদ্যোক্তা ছাড়াও প্রত্যন্ত এলাকার কৃষক ও খামারির যত্নে পালিত গরু, ছাগল ও ভেড়া ছাড়াও যুক্ত হয়েছে কসাই সেবা।

 

এই সেবার মধ্যে রয়েছে ঈদের তিনদিন আগে থেকে কসাইখানায় গরুর থাকা-খাওয়া, রাখালদের থাকা খাওয়া, গরুর স্বাস্থ্য ও ওজন পরীক্ষা, ইসলামি বিধান অনুযায়ী গরু জবাই, পরিচ্ছন্নতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাংস কাটা, গরুর ভুঁড়ি পরিষ্কার, মাংস, পায়া, কলিজা, মগজ ইত্যাদি ৪ কেজির নিরাপদ প্যাকেজিং করে দ্রুত সময়ের মধ্যে বাসায় পৌঁছে দেয়া।

 

এতে অন্যান্য সহযোগিতায় রয়েছে আইসিটি ডিভিশন ও বাংলাদেশ ডেইরি ফার্ম অ্যাসোসিয়েশন। সহযোগিতায় রয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

 

ডিজিটাল হাট থেকে সারাদেশের ক্রেতারা গরু ক্রয় বিক্রয় করতে পারলেও মাংস প্রক্রিয়াকরণ ও হোম ডেলিভারি সেবা শুধুমাত্র ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণবাসীদের জন্য প্রযোজ্য হবে।

 

উল্লেখ্য, কেউ চাইলে গরু ছাগল কেনার সময় এই সেবা একসাথে কিনতে পারবেন অথবা অন্যকোনো স্থান বা স্থানীয় হাট থেকে গরু কিনেও ডিজিটাল হাটের কসাই বা স্লটারিং সেবা নিতে পারবেন। ডিজিটাল হাট ছাড়াও এই সেবা দিচ্ছে আজকের ডিল, দারাজ, দেশিগরুবিডি, গরুহাট, ইভ্যালি ও যাচাই ডটকমসহ বেশকিছু অনলাইন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান।

 

যারা দেশের বাইরে আছেন কিন্তু তাদের আত্মীয় স্বজন দেশে রয়েছেন। অথবা দেশে আত্মীয় স্বজন নেই কিন্তু কোরবানি দিতে চান। তাদের জন্য বিদেশ থেকে পেমেন্ট দিলেই দেশে কোরবানির ব্যবস্থা করবে (digitalhaat.net) এই ওয়েবসাইট। প্রবাসী ক্রেতাদের জন্য আলাদা হেল্প লাইন- ০১৮৮৬৮৮৮০০০।

 

ই-কমার্স মার্কেটপ্লেস দারাজের হেড অব ইকুইজিশন সাইমুন সানজিদ চৌধুরী বলেন, ‘এটা নগরবাসীর জন্য একটা অনন্য সুযোগ। যারা এই কোভিড-১৯ সংক্রমণ থেকে নিরাপদ থাকতে চান বা বাসায় কসাই কিংবা গরুর কোনো ঝামেলা নিতে চান না। তাদের জন্য এক দারুণ সমাধান। কারণ আপনি দারাজ থেকে গরু ক্রয়ের পর আমরাই আপনার গরু ডিজিটাল হাটের স্লটারিং হাউসে পৌঁছে দেব। পুরো ব্যাপারটাতে গ্রাহকের টেনশন বা হয়রানির কিছু নেই। বরং গ্রাহক চাইলে স্লটারিং হাউসে গিয়ে তাদের গরু দেখে আসতে পারবেন।’

 

গরুহাট ডট কম-এর প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ শাহীন বলেন, ‘পরিচ্ছন্ন ঢাকা শহর চাইলে এ ধরনের উদ্যোগ নিতেই হবে। পাড়ায় পাড়ায় গরু জবাই করে পরিবেশ নষ্ট করার চেয়ে এটা অনেক নিরাপদ। আমাদের গরুহাট ডট কম থেকে যারা গরু কিনছেন তারা এই সেবা নিচ্ছেন। কারণ এখানে একদিকে পুরো কাজটা স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে করা হবে। অন্যদিকে দক্ষকর্মীরা কোভিড নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজটি করবেন। ডিএনসিসি, ই-ক্যাবে এবং অন্যান্য মার্চেন্টদের তত্ত্বাবধানে ঈদের তিনদিন ধরে চলবে এই কর্মযজ্ঞ।’

 

ইভ্যালির সিইও মোহাম্মদ রাসেল বলেন, ‘আমরা ডিজিটাল হাটের কসাইসেবাকে স্বাগত জানাই। গরু এবং ছাগলের জন্য এই সেবাকে আমরা ইভ্যালি থেকে বিক্রি করছি। ক্রেতাদের বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছি। বুকিং মানি গরুর জন্য ৫০০০ টাকা আর ছাগলের জন্য ১০০০ টাকা। ইভ্যালি থেকে এই সেবা নিলে বুকিং মানির উপর ৫০% ক্যাশব্যাক অফার চলছে।’

 

এ প্রসঙ্গে দেশিগরুবিডি-এর প্রধান নির্বাহী জনাব টিটু রহমান বলেন, ‘আমরা মূলত গ্রামীণ কৃষকের গরুগুলো অনলাইন প্ল্যাটফর্মে নিয়ে এসেছি যাতে নগরের ক্রেতারা সেই গরুগুলো ন্যায্যমূল্যে ক্রয় করতে পারে আর কৃষকও যেন উপযুক্ত দাম পায়। পাশাপাশি কোভিড সংক্রমণ রোধ করতে আমরা ডিজিটাল হাট-এর সাথে মিলে স্লটারিং সেবাটা দিচ্ছি। এটা একটা কমপ্লিট প্যাকেজ। এমনভাবে মাংস প্রসেস করে দেয়া হবে, যাতে বাসায় নিয়ে কাটাকাটি করতে না হয়।’

 

বাংলাদেশ ডেইরি ফার্ম অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ শাহ ইমরান বলেন, ‘ঈদের ৩ দিনে আমাদের সর্বোচ্চ ২০০০ গরু স্লটারিং ক্যাপাসিটি রয়েছে। আমাদের ৬০টি দক্ষ কসাই টিম একসাথে কাজ করবে। ফলে আমরা যথাসময়ে ক্রেতাদের বাসায় মাংস প্রসেস করে পাঠাতে পারব। এখানে ই-ক্যাবের লজিস্টিক ও ডেলিভারি প্রতিষ্ঠানগুলো আমাদের সহযোগিতা করবেন।’

 

ডিএনসিসির ডিজিটাল হাট থেকে যারা এই সেবা নিবেন তাদের জন্য মূল্য ঠিক করা হয়েছে। বুকিং মানি গরু ও মহিষের ক্ষেত্রে ৫০০০ টাকা, ছাগল ও ভেড়ার জন্য ১০০০ টাকা। যারা শুধু স্লটারিং সেবা নিবেন তাদের সেবার মূল্যের-বাকি টাকা পশুর লাইভ ওজনের উপর নির্ভর করবে। পশুর লাইভ ওজনের প্রতি কেজির জন্য মাংস প্রসেসিং ও অন্যান্য খরচ হিসেবে ৮৬.২৫ পয়সা করে প্রযোজ্য হবে। বুকিংয়ের টাকা মোট প্রদেয় টাকার সাথে সমন্বয় করা হবে।

 

ছাগল, খাঁসি, দুম্বা ও ভেড়ার জন্য কেজি প্রতি ১২৬.৫০ টাকা। যারা গরু ছাগল ও কসাইসেবা একসাথে ক্রয় করবেন তাদের পশুর মূল্যের সাথে ২৩% চার্জ যুক্ত হবে। এক্ষেত্রে ওজন প্রযোজ্য হবে না। এই মূল্যের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে গরুর থাকা খাওয়া, জবাই, মাংস কাটা, ভুঁড়ি পরিষ্কার, ৪ কেজি করে প্যাকেজিং ও বাসায় ডেলিভারি। ঈদের তিন দিন ধরে চলবে এই কার্যক্রম। আগে আসলে আগে পাবেন ভিত্তিতে বুক করা হচ্ছে। তবে দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনের জন্য এই সেবামূল্য কিছুটা কমতে পারে। বিস্তারিত জানতে সাপোর্ট সেন্টার: 09614102030, www.digitalhaat.net ভিজিট করুন।

 

0
20
fb-share-icon20
0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
কপিরাইট © ২০২০ | প্রেসবাংলাটুয়েন্টিফোরডটকম
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x