নেতাদের ১টা হোন্ডা ৩টা গুন্ডা নিয়ে চলা দমন করা উচিত: এসপি জায়েদুল

নেতাদের ১টা হোন্ডা ৩টা গুন্ডা নিয়ে চলা দমন করা উচিত: এসপি জায়েদুল

 

বন্দর প্রতিনিধি , প্রেসবাংলা২৪.কম: নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম (বার) বলেছেন, আমার যোগদান ১১ মাস হয়ে গেলো। আপনাদের সাথে আমার কথা হয়নি। প্রতিমাসের ২৪ তারিখে ওপেন হাউজ ডে হবে। ওপেন হাউজ ডে হলো উন্মুক্ত আলোচনা। এখানে আপনাদের সমস্যাগুলো বলবেন। আপনাদের বক্তব্য শুনে সমস্যা সমাধানের জন্য পদক্ষেপ গ্রহন করবো।

 

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) বিকেল ৩ টায় বন্দর থানা চত্তরে অনুষ্ঠিত ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কথাগুলো বলেছেন তিনি।

 

বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ ফখরুদ্দীন ভূইয়ার সভাপতিত্বে সভায় এসপি আরো বলেন, বন্দরে কিশোর গ্যংয়ের প্রাদুর্ভাব বেড়ে গেছে। এ কিশোর গ্যাংয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছে কারা এগুলো আমাদেরকে বের করতে হবে। পিত-মাতা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক ও বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দগণ তৎপর হলে কিশোর গ্যাংয়ের অপরাধ বন্ধ করা সম্ভব। নারায়ণগঞ্জ জেলায় ১১ মাসে ধর্ষণ মামলা হয়েছে ১০৭ টা। এর মধ্যে ৮৪টা হয়েছে খাতির ওয়ালা পার্টির আর ২৩টা হয়েছে ভালোবাসা জনিত কারণে।

 

বন্দর থানার এসআই মোঃ সবুর খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় এসপি জায়েদুল আরো বলেন, রাজনৈতিক নেতাদের উচিত ১ টা হোন্ডা ৩ টা গুন্ডা নিয়ে চলা ফেরা দমন করা। তালতলায় ছিনতাইরোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলুন। একটি গণতান্ত্রীক সরকারের মূল শক্তি হলো তার নিজ রাজনৈতিক দল। যারা রাজনিতীবিদ আছেন তারা এ বিষয়গুলো খেয়াল রাখবেন। ২/৪ টা খারাপ লোক আপনার দল থেকে বের করে দিলে আপনার ভোট কমবে না বরং বারবে। ১২ বছরে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের দেশকে কোথায় নিয়ে গেছে আপনারা তা দেখছেন। ২০৪১ সাল নয় ২০৩১ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিনত হবে।

 

ওসিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ছিনতাই, ধর্ষণ যেনো না হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। বন্দর একটি ইতিহাস ঐতিহ্যের স্থান। সভার শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন থানার পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) মোঃ তারিকুল ইসলাম ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খ সার্কেল মোঃ খোরশেদ আলম।

 

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুক্লা সরকার, উপজেলা চেয়ারম্যন ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্বা আলহাজ্ব এম.এ.রশিদ, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব কাজিমউদ্দিন প্রধান।

 

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফয়সাল মোহাম্মদ সাগর,২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব হান্নান সরকার,২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুলতান আহমেদ ভুইয়া, মদনপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এমএ সালাম,মুছাপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেন, ধামগড় ইউনিয়ন চেয়ারম্যন মাসুম আহম্মেদ, নাসিক ১৯নং ওয়ার্ড জাপার সভাপতি হাজী পলি বেগম, শিক্ষক নেতা শেখ কামাল, শিক্ষক নুর জাহিদ বাদল, সোনাকান্দা এনায়েত নগর পঞ্চায়েতের পক্ষে স্থানীয় জাপা নেতা মোঃ কামরুল,বাবুল,সানজিদা আহম্মেদসহ বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, পঞ্চায়েতের সদস্য ও রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ।

 

0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
কপিরাইট © ২০২০ | প্রেসবাংলাটুয়েন্টিফোরডটকম
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x