মতি নাই তাই ইকবালও নিবাচন থেকে সরে দাড়ালেন

স্টাফ রিপোটার, প্রেসবাংলা ২৪.কম: আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নিবাচনে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার আলীরটেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রাথী মতিউর রহমান মতির পর এবার তারই অনুগামী ৯নং ওয়াডের মেম্বার প্রাথী ইকবাল হোসেন নিবাচন থেকে সরে দাড়ালেন। ইকবাল হোসেন বতমান মেম্বার এবং চেয়ারম্যান মতির বিশ^স্ত লোক হিসাবে পরিচিত এবং চিহ্নিত। মতির নিবাচন থেকে সরে াড়ানোর যাওয়ার সংবাদে ইকবাল হোসেন শাহিন রাজুকে সমথণ দিয়ে তার পক্ষে ভোট চাইলেন ইকবাল হোসেন।

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) আলীরটেক ইউনিয়নের ৯নং ওয়াডের মুক্তারকান্দি এলাকায় পঞ্চায়েতের একটি আলোচনা সভায় ইকবাল হোসেন শাহিনকে সমথন দিয়ে নিবাচন থেকে সরে দাড়ানোর ঘোষনা দিয়েছেন।

এদিকে মুক্তারকান্দি গ্রামের কয়েকজনের সাথে আলোচনা করে জানা গেছে, ইকবাল হোসেন ৯নং ওয়াডের মেম্বার হলেও সে ছিল চেয়ারম্যান মতির ঘনিষ্ট সহচর। মতির সব ধরনের গোপন বিষয় ইকবাল জানতো। বিশেষ করে ইকবাল চেয়ারম্যান মতির লোক হওয়ার সুবাধে গত ৫বছর এলাকায় প্রভাব বিস্তার করতো। যার কারনে আলীরটেকে ইশবালের নামটা ব্লাকলিস্টে রয়েছে। এবার নিবাচনেও ইকবাল প্রাথী হলেও মতি নিবাচন থেকে সরে দাড়ানোর সংবাদে ইকবালও নিবাচন থেকে সরে দাড়িয়েছে।

আর শাহিন রাজু বিগত আমলে মেম্বার পদে নিবাচিত হয়ে এলাকার মানুষের মন জয় করতে পেরেছিল। এলাকার জনগনের সুখ দু:খে পাশে থেকে এলাকার উন্নয়ন করেছে। এবার শাহিন নিবাচন করার সিদ্ধান্ত নেয়ায় দলমত নিবিশেষে শাহিনকে সমথন করেন।
শাহিন রাজুর সাথে যোগাযোগ করা হলে ইকবাল ভাই ভাল মানুষ। সে বতমানে মেম্বার। তিনি এবার পঞ্চায়েতকে সম্মান দিয়ে আমাকে সমথন দিয়েছেন। আমি মেম্বার নিবাচিত হলে ইকবালকে সাথে নিয়ে বিগত আমলের মত এলাকার উন্নয়ন করবো ইনশায়াল্লাহ।

তিনি আরও বলেন, আসলে মতিউর রহমানের সাথে তাল মিলিয়ে ইকবাল ভাই নিবাচন থেকে সরে দাড়িয়েছে এটা বলা ঠিক হবে না। আমাদের গ্রাম হলো পঞ্চায়েত পথায় চলে। নিবাচন নিয়ে পঞ্চায়েতের নেতৃবৃন্দরা আলোচনা বসার পর ইকবাল আমাকে সমথন করে নিবাচন না করার ঘোষনা দেন।

ইকবাল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করার জন্য তার মোবাইলে এশাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি তার ব্যবহ্নত ফোন রিসিভ করেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com