ইতিহাস গড়ে চ্যাম্পিয়ন হলো বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক, প্রেসবাংলা২৪ডটকম: ফাইনালে উইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়ে প্রথমবারের মত  বহুজাতিক টুনামেন্টে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি ঘরে তুলল বাংলাদেশ। টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। তবে ডাবলিনে বৃষ্টির কারণে দীর্ঘক্ষণ বন্ধ থাকে ম্যাচটি। বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে ২০.১ ওভারে ১৩১ রান তুলেন দুই উইন্ডিজ ওপেনার শাই হোপ ও সুনীল অ্যামব্রিস। শাই হোপ করেন ৭৪ রান ও সুনীল অ্যামব্রিস করেন ৬৯ রান ।

 

মিরাজ ইনিংসের ২৩তম ওভারে ফিরিয়ে দেন ওপেনার শাই হোপকে। বাউন্ডারি সীমানায় অসাধারণ ক্যাচ নেন মোসাদ্দেক হোসেন। তার আগে ক্যারিবীয়ান ওপেনার ৬৪ বলে ৬টি চার আর তিনটি ছক্কায় করেন ৭৪ রান। দলীয় ১৪৪ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় উইন্ডিজরা। আরেক ওপেনার সুনীল অ্যামব্রিস ৭৮ বলে সাতটি চারে ৬৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। তিন নম্বরে নামা ড্যারেন ব্রাভো ৩ রানে অপরাজিত থাকেন।

বৃষ্টির কারনে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ২৪ ওভারে ২১০ রানের বিশাল লক্ষ্য নির্ধারন হয় ।  মোসাদ্দেকের ঝড়োয়া ব্যাটিংয়ে ৭বল হাতে রেখেই চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেলো টাইগাররা।

 

বৃষ্টিতে দীর্ঘ সময় খেলা বন্ধ থাকায় ম্যাচের দৈর্ঘ্য কমে ২৪ ওভারে। উইন্ডিজের সংগ্রহ ১৫২। বৃষ্টি আইনে (ডাকওয়ার্থ লুইস মেথডে) টাইগারদের টার্গেট ২১০ রান।

 

বাংলাদেশ জয়ের জন্য ২১০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনাই করেছিল । দুই ওপেনার তামিম ইকবাল এবং সৌম্য সরকারের উড়ন্ত সূচনার পর ৫.৩ ওভারেই করেন ৫৯ রানের জুটি। ১৩ বলে ১৮ রান করে আউট হয়ে যান তামিম ইকবাল।

 

সাব্বির রহমান তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামেন ।  শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে কোনো রান না করেই ফিরে গেলেন সাব্বির রহমান। সাকিব আল হাসান না থাকার অভাবটা ভালোই টের পাওয়া গেলো। সাব্বিরের পর চার নম্বরে ব্যাট করতে নামেন মুশফিকুর রহীম।

 

১৪তম ওভারের শেষ বলে  মুশফিকুর রহিম   আউট হওয়ার আগে ২২ বলে দুই চার, দুই ছক্কায়  করেন ৩৬ রান। দলীয় ১৩৬ রানের মাথায় চতুর্থ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ব্যক্তিগত ১৭ রান করে আউট হন মোহাম্মদ মিঠুন।  ১৪ বল খেলে একটি চারের সঙ্গে তার ব্যাট থেকে আসে একটি ছক্কা। অসাধারণ নৈপূণ্য দেখিয়ে ২০ বলে ফিফটি করেন মোসাদ্দেক হোসেন। যা বাংলাদেশের তৃতীয় দ্রুততম ফিফটি। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ২১ বলে ১৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। কাজের কাজটি করেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ২৪ বলে করেন অপরাজিত ৫২, যেখানে চার ছিল দুটি আর ছক্কার মার ছিল ৫টি। ২১০ রানের টার্গেট থাকলেও বাংলাদেশ ২১৩ রান করে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন । ঝড়োয়া ব্যাটিং করে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com